ভারতে ১৬ বছরেই বিয়ে করতে পারবে মুসলিম মেয়েরা

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

বাপ্পি বিশ্বাস পশ্চিমবঙ্গ ভারত:- ১৬ বছর বয়স হলেই মুসলিম মেয়েরা বিয়ে করতে পারবে বলে জানিয়ে দিলো ভারতের পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ডয়েচে ভেলে।

ভারতে এমনিতে মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ বছর। সম্প্রতি মোদী সরকার বিল এনে পুরুষদের মতো মেয়েদের বিয়ের বয়সও ২১ বছর করতে চেয়েছে।

এই অবস্থায় পাঞ্জাবে ২১ বছর বয়সি ছেলে এবং ১৬ বছর বয়সি মেয়ে হাইকোর্টে আবেদন জানিয়ে বলেছিল, তারা বিয়ে করার পর ভয় পাচ্ছে।

হাইকোর্ট এখন পরিবারের মানুষদের কাছ থেকে তাদের জীবনরক্ষার ব্যবস্থা করুক ও তাদের স্বাধীনতা নিশ্চিত করুক।এই মামলার রায়ে হাইকোর্ট বলেছে, মুসলিম মেয়েরা ১৬ বছর বয়সে বিয়ে করতে পারবে।

বিচারপতি জয়জিৎ সিং বেদীর বেঞ্চ এই রায় দিয়েছে।আবেদনকারীদের পক্ষের আইনজীবীর যুক্তি ছিল, মুসলিম আইনে বয়ঃসন্ধিতে পা দেয়া মানেই বড় হয়ে যাওয়া। তখন ছেলে বা মেয়ে বিয়ে করতে পারে। তাদের পরিবার বা অবিভাবকরা কোনোরকম হস্তক্ষেপ করতে পারবে না।

কোনোরকম হস্তক্ষেপ করতে পারবে না।গত ৮ জুন ওই ছেলে ও মেয়েটি বিয়ে করে। তারপর তাদের মনে হয়, তাদের জীবনের আশঙ্কা আছে। তারা পাঠানকোটের এসপি-কে বিষয়টি জানায়।

কিন্তু পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। তখন তারা হাইকোর্টে আবেদন জানায়।বিচারপতি বেদী বলেছেন, আইনে স্পষ্ট বলা আছে, মুসলিম মেয়েদের বিয়ে হবে মুসলিম পার্সোনাল আইন অনুসারে।

প্রিন্সিপালস অফ মহমেডান ল-র ১৯৫ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুাসারে এই বিয়ে আইনসিদ্ধ।কারণ, মেয়ের বয়স ১৬ বছরের বেশি। তাই সে তার জীবনসঙ্গী বেছে নিতে পারবে। আর ছেলের বয়স ২১ বছর বলে সেও বিয়ে করার অধিকারী। বিচারপতি পাঠানকোটের এসপি-কে বলেছেন, এই দম্পতির নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে।