হঠাৎ ধনী হলে মানুষ ভাবে ইংরেজিতে কথা বলা আধুনিকতা: প্রধানমন্ত্রী

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, হঠাৎ টাকা-পয়সার মালিক হয়ে যাওয়া কিছু মানুষ মনে করে ইংরেজিতে কথা বলতে পারা আধুনিকতা। স্মার্ট হতে হলে শুধুমাত্র একটা ভাষা শিখতে হবে এবং সে ভাষায় কথা বলতে হবে আমি সেটা বিশ্বাস করি না। নিজের ভাষা শিখে অন্যের ভাষাও শেখা যায়।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উদযাপন উপলক্ষ্যে চারদিনের কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

সরকারপ্রধান বলেন, স্মার্ট হতে গেলে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে তা নয়। তবে কর্মক্ষেত্রের প্রয়োজনে অনেক ভাষা শেখা দরকার। শিক্ষার মাধ্যমটা মাতৃভাষায় হওয়া উচিত, এর সঙ্গে শিশুদের আরও দু-তিনটি ভাষা শেখানোর দরকার। বাংলাকে সারা বিশ্বে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। বিশ্বায়নের এই যুগে একাধিক ভাষা জানলে আত্মবিশ্বাস বাড়বে।

মাতৃভাষা বাংলাকে রক্ষায় যারা আত্মত্যাগ করেছে, তাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যের শুরুতে শ্রদ্ধা জানান। বলেছেন, বাঙালি জাতি নিজের মাতৃভাষাকে মর্যাদা দেয়ার জন্য মহান আত্মত্যাগ করেছিলেন। বাঙালি জাতি রক্ত দিয়ে ভাষার মর্যাদা দিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, নিজের ভাষা রক্ষা করার মধ্য দিয়ে একটা জাতি উন্নত জীবন পেতে পারে। আর আমাদের মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকারটুকুও কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। এছাড়া একটা বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের দুর্ভাগ্য যে এখানে ইতিহাস বিকৃত করা হয়। পঁচাত্তরের পর ইতিহাসকে বিকৃত করা হয়েছিল। এমন সময় এসেছিল, আমরা যে বিজয়ী জাতি তাই ভুলিয়ে দেয়া হয়েছিল।

শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা ও সংস্কৃতিবিষয়ক উপদেষ্টা ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলী, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব সোলেমান খান, আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. হাকিম আরিফ।